ব্রেকফাস্টে কর্নফ্লেক্স খান? সাবধান হোন এখনই! নয়তো পরে পস্তাবেন!

খাদ্যাভ্যাসের প্রসঙ্গ এলেই পুষ্টিবিদ ও চিকিৎসকরা বরাবর গুরুত্ব দেন দিনের প্রথম খাবারের প্রতি। ব্রেকফাস্টের পরিমাণ ও খাদ্যবস্তুটির প্রতি সব সময়ই সচেতন থাকতে বলেন তাঁরা। বাড়ি থেকে গাড়ি নিয়ে বেরনোর সময় যেমন প্রথমেই অনেকটা পেট্রল ভরে নিলে সারা দিনের জন্য আর চিন্তা থাকে না, ব্রেকফাস্টও অনেকটা সেরকমই। প্রথমেই ভারী খাবার দিয়ে পেট ভরিয়ে নেওয়াই যুক্তিসঙ্গত।আর এখানেই আমরা বেশির ভাগই বেছে নিই কর্নফ্লেক্সকে।

ভারী খাবার চাই, এ দিকে মেদও বাড়বে না— এই সব শর্ত মেনে চলতে গিয়ে আমরা অনেকেই কর্নফ্লেক্সকে আপন করে নিই সকালের খাবারে। সারা বিশ্বেই অন্যতম জনপ্রিয় ব্রেকফাস্ট এই কর্নফ্লেক্স৷ বানানো সহজ হওয়ায় এই খাবারের প্রতি ঝোঁক তৈরি হওয়াও স্বাভাবিক। কিন্তু ব্রেকফাস্টে কর্নফ্লেক্স খাওয়া আদৌ পুষ্টিকর কি?

পুষ্টিবিদ সুমেধা সিংহের কথায়, ‘‘খাদ্যাভ্যাসকেও পিরামিডের মতো আকার মেনে চলতে হয়। দিনের প্রথম খাবারটি ভারী হলে তার উপর নির্ভর করে গোটা দিনের শক্তি সঞ্চিত হয়। তাই দিনের প্রথম খাবারের প্রতি যত্নবান হতেই হবে। তাই খাবার বাছতে হবে খুব বুঝেশুনে।’’

তাঁর মতে কর্নফ্লেক্সকে সুস্বাদু করে তুলতে এতে মেশানো হয় ‘হাই ফ্রুক্টোজ কর্ন সিরাপ’৷ তাই কর্নফ্লেক্সের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স উচ্চ পর্যায়ে থাকে৷ তা ছাড়া এই খাবার শুধু খাওযা যায় না। এতে মেশাতে হয় নিদেনপক্ষে দুধ। অনেকে শুকনো ফল বা মরসুমি নানা ফলও এর সঙ্গে মেশান।

এতে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স আরও বাড়ে, যা শক্তি বাড়ালেও শরীরের জন্য বিশেষ সুখকর নয়। তা ছাড়া প্যাকেটজাত কর্নফ্লেক্সে অ্যাডেড সুগার থাকে, যা কেবল ক্ষতিকারকই নয়, মেদবৃদ্ধিতেও বিশেষ কার্যকর। তাই মেদ সরাতে যে খাবার খাচ্ছেন, তার হাত ধরেই ঢুকে পড়ছে শরীরে ওবেসিটির বিষ ও রক্তে শর্করার পরিমাণ।

তাই প্রতি দিন কর্নফ্লেক্স বা অন্য কোনও সিরিয়াল ফুডের অভ্যাস থাকলে তা বদলান। বরং হাতরুটি, প্রয়োজনে পেট ভরে ভাত কিংবা নানা সব্জির স্যালাড এ সবেই আস্থা রাখুন বেশি। কেবল, সকালেই ভাত খেলে সারা দিনে আর ভাত না খেয়ে অন্য কোনও খাবার খান। এতে মেদ যেমন এড়ানো যাবে, তেমনই শরীর থাকবে সুস্থ। খাদ্যাভ্যাসের পিরামিডও মেনে চলা সহজ হবে।

Post Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *